ঘানি ভাঙা খাঁটি সরিষার তেল 1kg

$2.94

5 in stock

★ উৎকৃষ্ট মানের অর্গানিক ও কেমিক্যালমুক্ত ঘানি ভাঙা খাঁটি সরিষার তেল.
★ নিজস্ব তত্ত্বাবধানে সম্পূর্ণ দেশি মাঘি সরিষা (৯০% লাল+ ১০%সাদা মিশ্রণ) থেকে মর্টারের সাহায্যে ঘুরানো কাঠের ঘাণিতে ভাঙ্গানো ১০০% কোল্ড প্রেসড্ পিওর সরিষা তেল
★ ঢাকা এবং চট্টগ্রাম সিটিতে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ডেলিভারি দেয়া হয়।
★ বাংলাদেশের যেকোন জায়গায় মাত্র ৯৬ ঘন্টার মধ্যে ডেলিভারি দেয়া হয়।
★ ঢাকার বাহিরে : সুন্দরবন / এসএ পরিবহন / কন্টিনেন্টাল / জননী কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে বাংলাদেশের যেকোন জায়গায় প্রোডাক্ট পাঠানো হয়।
★ ডেলিভারি চার্জ:- ডেলিভারীর ক্ষেত্রে ঢাকা এবং চট্টগ্রাম সিটির জন্য আমরা ৬০ টাকা এবং ঢাকার বাহিরের জন্য ১২০ টাকা অগ্রীম নিয়ে থাকি।
✅ প্রত্যেক অর্ডার এর সাথেই গিফট ১০০%।
☎ অর্ডার করতে SMS অথবা কল করুন: ইমো: +৮৮ ০১৮১৫-৪০৫২১৯, হোয়াটস্যাপ: +৮৮০ ১৭৩৪-৮৩৭০২৩।
★ লাইট, ফোটোগ্রাফি এবং প্যাকেজিং এর কারণে ওয়েবসাইটে দেয়া ছবির সাথে বাস্তবের ছবির হুবুহু মিল নাও থাকতে পারে।

Compare
SKU: BEMO1000 Category:

সরিষার তেলের উপকারিতার কথা অনেকেই জানেন। এ তেল দিয়ে শুধু ত্বকই নয়- হৃৎপি-, পেশি, গাঁটের সমস্যা পর্যন্ত দূর করা  যায়। সরিষার তেল ভেষজ প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক। এটি ব্যবহারে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই এবং সহজেই হজমকারক। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়েছে, শ্বাসনালি এবং মূত্রনালি ও ব্রঙ্কাইটিস ইনফেকশন সারাতে সরিষার তেল বিশেষ ভূমিকা  রাখে।  এ তেলে রোগের জীবাণু ধ্বংসের ক্ষমতা রয়েছে। এর উপাদান শরীর ক্ষুদ্রান্ত্রের মাধ্যমে গ্রহণ করে এবং ফুসফুস ও বৃহদান্ত্রের প্রয়োজনীয় জীবাণুকে কোনোরকম ক্ষতি না করেই কিডনির মাধ্যমে তা নিষ্কাশিত করে দেয়। এই তেল বৃহদান্ত্রের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও হজমে সহায়তা করে। তবে এ ক্ষেত্রে কি রকম তেল ব্যবহার করতে হবে- সেটা না জানলে ফলাফল খারাপ হতে পারে। লক্ষ্য রাখার বিষয় হলো, শরীরের জন্য নামি-দামি ব্যান্ডের সরিষার তেল কিন্তু মোটেও উপকারী নয়। আসলে প্রয়োজন খাঁটি সরিষার তেল। ত্বক বিশেষজ্ঞদের মতে, ব্যান্ডেড তেল নয়, খাঁটি সরিষা থেকে ঘানিতে তৈরি করা তেল ব্যবহার করতে হবে।

সরিষার তেল থেকে আরও কতগুলো উপকার মিলতে পারে। যেমন- এক. সরিষার তেল অ্যালার্জি ও র‌্যাশ প্রতিরোধে সাহায্য করে। দুই. ত্বকে ঔজ্জ্বল্য আনতে প্রতি রাতে সম পরিমাণ সরিষার তেল ও নারকেল তেল মিশিয়ে মিনিট দশেক ধরে মাসাজ, তারপর ভালো করে মুখ ধুয়ে ঘুমোতে গেলে ত্বক যেমন নরম থাকবে, তেমন উজ্জ্বলও হবে।

তিন. ত্বকে কালসিটে পড়া স্বাভাবিক। এ অবস্থায় ডার্ক স্পট, ট্যান বা পিগমেন্টেশন ঠেকাতে বেসন, দই, লেবুর রসের সঙ্গে সরিষার তেল মিশিয়ে মুখে-ঘাড়ে ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেললে দারুণ উপকার পাওয়া যাবে। চার. সরিষার তেলে রয়েছে ভিটামিন এ, ই এবং বি কমপেক্স। ফলে এটি রিংকল বা দেহের নানান কালসিটে দাগ কমিয়ে দেয়। পাঁচ. সানস্ক্রিনে মুখে খুব ঘাম হলে বা ত্বক নষ্ট হতে থাকলে অল্প সরিষার তেল হাতের তালুতে ঘষে মুখে লাগিয়ে নিলে তা সূর্যের ক্ষতিকারক আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করবে। তবে বেশি তেলে ধুলোবালি ধরে রাখে ত্বক। তাই খেয়াল রাখতে হবে পরিমাণের দিকে। ছয়. সরিষার তেল অ্যান্টি ব্যাকটিরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদানে ভরপুর। তাই এ তেল অ্যালার্জি ও র‌্যাশের হানা প্রতিরোধে সাহায্য করে। সাত. ত্বকের শুষ্কতা ও চুলকানি রুখতেও সরিষার তেল বিশেষ কাজে আসে।

Submit your review

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Reviews

There are no reviews yet.

See It Styled On Instagram

    Instagram did not return a 200.

Main Menu

organic Mustard oil

ঘানি ভাঙা খাঁটি সরিষার তেল 1kg